রোববার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৬ ১৪২৬   ২২ মুহররম ১৪৪১

৪৩২

বিবাহিত জীবনে ‘একাকীত্ব’ কষ্ট দিচ্ছে খুব?

নিউজ ডেক্স

প্রকাশিত: ২৮ ডিসেম্বর ২০১৮  

সত্যি বলতে কি, জীবনের কোন না কোন পর্যায়ে গিয়ে আমরা সকলেই একা। জন্ম ও মৃত্যুর মত একাকীত্ব বা একা হবার অনুভবটাও জীবনের ধ্রুব সত্য। স্বভাবতই মানুষ হিসেবে আমরা সেই একাকীত্ব দীর্ঘদিন সহ্য করতে পারি না, ফলে সম্পর্ক গড়ে তুলি। প্রেম, ভালোবাসা, বিয়ে, পরিবার ইত্যাদি সকল সম্পর্কই গড়ে তোলার নেপথ্যে অন্যতম কারণ একাকীত্ব দূর করা। পৃথিবীতে এমন কিছু মানুষ তৈরি করা, যারা আমাদের সাথে চিরকাল থাকবে। বিশেষ করে জীবনসঙ্গী হচ্ছেন সেই মানুষ, যার হাত ধরে আমরা বাকি জীবন পার করার স্বপ্ন দেখি।

সেই বৈবাহিক সম্পর্কটির মাঝেও যখন চলে আসে একাকীত্বের যন্ত্রণা? যখন পাশে প্রিয়জন নিয়েও একাকীত্বের যন্ত্রণা কষ্ট দিতে থাকে খুব? হ্যাঁ, এমনটা হতেই পারে। কীভাবে সেই দুঃসহ সময় পার করবেন, সেই বিষয়েই থাকছে কিছু পরামর্শ।

ব্যাপারটিকে মেনে নিন

বিবাহিত হওয়া সত্ত্বেও একাকীত্ব বোধ করার মাঝে অস্বাভাবিক কিছুই নেই। বরং এমন হওয়াটাই খুব স্বাভাবিক। অন্য সব সম্পর্কের মত বৈবাহিক সম্পর্কেও নানান উত্থান-পতন আসে। আপনার যেমন মানসিক অবস্থার পরিবর্তন ঘটে, সঙ্গীরও তাই। দিনযাপনের নানান কারণে দুজনের মাঝে মতবিরোধ হতে পারে, সময়ের অভাবে আসতে পারে দূরত্ব। কিন্তু তার মানে এই নয় যে ভালোবাসা ফুরিয়ে গেল বা বাকি জীবন এভাবেই কেটে যাবে। বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই ধৈর্য, চেষ্টা ও ভালোবাসার মাধ্যমে এই সমস্যা দূর করা যায়। তাই, প্রথমেই জীবনের এই বাস্তবতাকে মেনে নিন। মানুষ হিসেবে মাঝে মাঝে আমাদের জন্যে একা থাকাটাও জরুরী।

অনুসন্ধান করুন

আপনি কেন একা বোধ করছেন? কারণটি কী? সঙ্গীর সাথে কোনরকম মনোমালিন্য বা দূরত্ব তৈরি হয়েছে কি? নাকি অন্য কোন সমস্যায় ভুগছেন?- প্রশ্নগুলোর জবাব খুঁজতে শুরু করুন। কেন জীবনে একজন প্রিয় মানুষ থাকা সত্ত্বেও একাকীত্বের যন্ত্রণায় কষ্ট পাচ্ছে মন, সেই বোঝার চেষ্টা করুন। বুঝতে পারলে সমাধানের পথো মিলবে।

প্রত্যাশা হোক বাস্তববাদী

আপনি যেমন মানুষ, আপনার সঙ্গীও মানুষ। তাই অবাস্তব প্রত্যাশা সঙ্গীর কাছ থেকে না রাখাই ভালো। জীবনটা সিনেমা বা সোশ্যাল মিডিয়ার মত নয়, জীবনধারণ করতে গেলে অলীক প্রত্যাশ পুষে রাখলেও চলে না। ভালোবাসার অর্থ এই নয় যে কেউ সারাক্ষণ আপনাকে সঙ্গ দেবে, আপনার বিষয়ে সম্মতি জানাবে বা সারাক্ষণ প্রেম-ভালোবাসার কথা বলবে। বাস্তব জীবনে আমাদের সমস্যার সম্মুখীন প্রতিনিয়তই হতে হয়। তাই বাস্তববাদী প্রত্যাশা রাখুন, একাকীত্ব কম গ্রাস করবে।

জীবনকে অর্থবহ করে তুলুন

মনে রাখবেন, আপনার একাকীত্ব জগতে অন্য কেউ দূর করতে পারবে না, যদি না আপনি নিজে চেষ্টা করেন। আর একাকীত্ব দূর করার সবচাইতে চমৎকার উপায় হচ্ছে নিজেই নিজের বন্ধু হয়ে ওঠা, নিজের সঙ্গ উপভোগ করা। বিষণ্ণতায় সময় নষ্ট না করে এমন কিছু করুন, যাতে জীবন অর্থবহ হয়ে ওঠে। নিজের পছন্দ বা ভালো লাগার কাজ করুন বা অন্যের জন্যে কিছু করুন।

এগিয়ে যান ও যত্ন করুন

একাকীত্বের যন্ত্রণায় একলা একলা না ধুঁকে মরে বরং নিজেই উদ্যোগ নিন। নিজের প্রিয় মানুষকে জানান কষ্টের কথা, সমস্যার সমাধানে নিজেই উদ্যোগী হোন। প্রয়োজনে কাউন্সিলিং করার, অন্য প্রিয়জনেদের সাহায্য নিন। এই আশায় বসে থাকবেন না যে অন্য কেউ আপনাকে উদ্ধার করতে আসবে।

পরকীয়ার ভুল নয়

দাম্পত্যে একাকীত্ব বোধ করলে অধিকাংশ মানুষ ঝুঁকে পড়েন পরকীয়ার দিকে। ধরে নেন, জীবনসঙ্গীর চাইতে বুঝি পরকীয়ার প্রেমিক/প্রেমিকাই বেশি ভালোবাসে। এটি অত্যন্ত ভুল ধারণা আর এই ধারণা জীবনের পথে অশান্তি ছাড়া কিছুই বয়ে আনে না। একজনের সাথে বিচ্ছেদের পরেই নতুন কোন সম্পর্কে জড়ানো উচিৎ, একাকীত্ব দূর করার জন্যে পরকীয়ায় নয়।

নিজের জীবনের লাগাম নিজ হাতেই তুলে নিন, জীবন হয়ে উঠবে সহজ।

রাজবাড়ী প্রতিদিন
রাজবাড়ী প্রতিদিন