শনিবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৫ ১৪২৬   ২১ মুহররম ১৪৪১

১১১

রাজবাড়ী-২ আসনে অস্তিত্ব সংকটে বিএনপির প্রার্থী সাবু

নিজেস্ব প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২৮ ডিসেম্বর ২০১৮  

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজবাড়ী-২ আসনের ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী নাসিরুল হক সাবুর ভোটের মাঠে দৈন্যদশার সৃষ্টি হয়েছে। তিনি অস্তিত্ব সংকটে পড়েছেন বলে রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। এবারে কর্মীসংকটে নির্বাচনী মাঠে তেমন প্রচার-প্রচারণা চালাতে পারেন নাই তিনি।

বিএনপির প্রার্থী নাসিরুল হক সাবু ২০০১ সালে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে এ আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হন। রাজবাড়ী জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ছিলেন তিনি। বিএনপির সময়ে এলাকায় চরমপন্থী সন্ত্রাসীদের তৎপরতা বৃদ্ধি পায়। ২০০৪ সালের ৩১ জানুয়ারী পাংশার সাবেক অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমান চরমপন্থী সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন। পাংশার বিভিন্ন এলাকার আওয়ামী লীগের ৯জন কর্মীও হত্যার শিকার হয়। সে সময়ে এলাকায় উল্লেখযোগ্য বিশেষ করে বিদ্যুৎ, রাস্তাঘাটের তেমন উন্নয়ন হয় নাই।

জানা যায়, প্রাথমিকভাবে এ আসনে নাসিরুল হক সাবু, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হারুন-অর-রশীদ ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আলহাজ্ব এ্যাডভোকেট আব্দুর রাজ্জাক খান তিনজনকে মনোনয়ন প্রদান করা হয়। তিনজনই মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। পরে চূড়ান্তভাবে বিএনপি থেকে নাসিরুল হক সাবুকে মনোনয়ন দেয় বিএনপি। বিএনপির অপর দুই প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করলেও বিএনপির অভ্যন্তরীণ হারুন গ্রুপ ও সাবু গ্রুপের নেতাকর্মীদের মধ্যে ঐক্য প্রতিষ্ঠা হয় নাই।

বিএনপির নেতৃত্বে বিভক্তি ও নানা প্রতিবন্ধকতার কারণে বিএনপির প্রার্থী নাসিরুল হক সাবু প্রচার-প্রচারণায় নির্বাচনী অনুকুল পরিবেশ তৈরী করতে পারেন নাই। ২০০৮ সালের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতা করে ১ লাখ ৩২ হাজার ৭৯৯ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিলেন নাসিরুল হক সাবু। এবারে সেই ভোট ধরে রাখাই চ্যালেঞ্জ হয়েছে তার। রাজনৈতিক সচেতন মহলের লোকজনের ধারণা, ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণকে সামনে রেখে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য নাসিরুল হক সাবু অস্তিত্ব সংকটে পড়েছেন।

রাজবাড়ী প্রতিদিন
রাজবাড়ী প্রতিদিন
এই বিভাগের আরো খবর